স্মার্টফোনের অতিরিক্ত ব্যবহারে কমছে চিন্তাশক্তি

প্রকাশঃ ০৩:৪৪ মিঃ, অক্টোবর ১০, ২০১৮
Card image cap

স্মার্টফোনের অতিরিক্ত ব্যবহারে কমছে চিন্তাশক্তি

টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

স্মার্টফোনের অতিরিক্ত ব্যবহার দক্ষতা ও চিন্তাশক্তি কমিয়ে দিচ্ছে। এতে বিশেষ করে শিশু-কিশোরেরা শিকার হচ্ছে ‘সাইবার বুলিং’য়ের। যা পরে তাদের ঠেলে দিচ্ছে মানসিক অসুস্থতার দিকে।

 

বিশ্বব্যাপী মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে চালানো বিভিন্ন জরিপে এমন তথ্যই উঠে এসেছে বলে জানিয়েছেন মানসিক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

 

১০ অক্টোবর বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। এ উপলক্ষে বুধবার (১০ অক্টোবর) বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও দিবসটি পালিত হচ্ছে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য-‘পরিবর্তনশীল বিশ্বে তরুণদের মানসিক স্বাস্থ্য’।

 

মানসিক সমস্যা দূর করার পাশাপাশি এ ধরনের জটিল কিন্তু সমাধানযোগ্য রোগের ক্ষেত্রে তরুণদের সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশের মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞরা।

 

এক গবেষণায় দেখা গেছে, দেশের ৯০ ভাগ সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী ও গেমার ১৮ থেকে ২৯ বছর বয়সী। গবেষকদের মতে, সমস্যা সমাধানের দক্ষতা ও চিন্তাশক্তি কমিয়ে দিচ্ছে স্মার্টফোনের অতিরিক্ত ব্যবহার। গবেষণার জরিপের তথ্য অনুসারে, দেশে কিশোর-কিশোরীরা ‘সাইবার বুলিং’-এর শিকার হচ্ছে। বিশেষ করে অনলাইন গেমসে আসক্তদের সাইবার বুলিং-এর ঝুঁকি বেশি। (Cyber Bullying)- মূলত কোনো শিশুকে প্রলুব্ধ বা হেয় করা, ভয় দেখানো এবং মানসিক নির্যাতন করা বোঝাতে সাইবার বুলিং শব্দ দুটি ব্যবহার করা হয়)। যা পরিবর্তীকালে ওই কিশোর-কিশোরীর মানসিক স্বাস্থ্য অসুস্থ করে তোলে।

 

সব মানসিক অসুস্থতার অর্ধেক শুরু হয় ১৪ বছর বয়সে। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তা থেকে যায় অগোচরে। বয়ঃসন্ধিকালে এ রোগের কারণে বিষন্নতা দেখা দেয়। এ রোগের তৃতীয় প্রধান লক্ষণ বিষন্নতা। এছাড়া ১৫-২৯ বছর বয়সীদের মধ্যে আত্মহত্যার কারণও মানসিক রোগ। আত্মহত্যা এ রোগের দ্বিতীয় প্রধান লক্ষণ।

 

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, বিশ্বে ১০ থেকে ১৯ বছর বয়সীদের প্রতি ছয়জনের একজন মানসিক রোগে আক্রান্ত। মানসিক রোগ সাধারণত ১৪ বছর বয়সে শুরু হয়, যা প্রাথমিক অবস্থায় পরিলক্ষিত হয় না। অবসাদ এ রোগের প্রধান লক্ষণ। যে কারণে এ বয়সীদের আত্মহত্যার প্রবণতা দিন দিন বেড়েই চলছে। যা বিশ্বে মৃত্যুর তৃতীয় অন্যতম প্রধান কারণ। বেঁচে থাকলেও বিভিন্ন ধরনের শারীরিক অক্ষমতা নিয়ে বাঁচে তারা।

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ৫২ বার


মুখোমুখি

Card image cap
‘বাংলাদেশকেই হিটাচি পণ্যের বাজার হিসেবে অধিক সম্ভাবনাময় দেশ বলে মনে হয়’ - চেন টেক ব্যঙ্ক

হিটাচি হোম ইলেকট্রনিক্স এশিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব চেন টেক ব্যঙ্ক প্রকৃতঅর্থে একজন বয়োজষ্ঠ্য, কিন্তু তার জ্ঞানের পরিধি এবং অক্লান্ত পরিশ্রম তার বয়সকেও হার মানিয়ে দেয়। আর সে কারণেই তিনি হয়ে ওঠেন এক অদম্য যুবকের সমতুল্য। তার আধুনিক ব্যবসায়িক চিন্তাধারা এশিয় অঞ্চলে হিটাচি পণ্য ও সেবার  বাজারের ব্যাপক প্রসার ঘটাবে বলে আশা করা যাচ্ছে। বাংলাদেশে হিটাচি কোম্পানির ডিস্ট্রিবিউটর ইউনিক বিজনেস সিস্টেম লিমিটেড কর্তৃক আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে মাসিক টেকওয়ার্ল্ড পত্রিকার প্রতিনিধির জনাব চেন টেক ব্যঙ্ক এর সাক্ষাৎকার গ্রহণের সুযোগ হয়, যার উল্লেখযোগ্য অংশটুকু এখানে তুলে ধরা হলোঃ

প্রশ্নঃ সাধারণ