সৌর বেজ স্টেশনে টেলিটক পৌঁছাবে দুর্গম অঞ্চলে

প্রকাশঃ ০৩:৫১ মিঃ, অক্টোবর ২৫, ২০১৮
Card image cap

সৌর বেজ স্টেশনে টেলিটক পৌঁছাবে দুর্গম অঞ্চলে

টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

ঢাকা:
সৌর বেইজ স্টেশন নির্মাণ করে হাওর, দ্বীপ, পাহাড়ি এলাকাসহ দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের জেলা জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোণার কিছু দুর্গম এলাকায় পৌঁছাবে রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল অপারেটর টেলিটক। ফোরজি হাইস্পিড নেটওয়ার্ক ও ভয়েস কল সুবিধাও পাবেন এসব এলাকার গ্রাহকরা।

সৌর বেজ স্টেশন স্থাপনের মাধ্যমে দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলে টেলিটক নেটওয়ার্ক কভারেজ শক্তিশালী করণ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এটি বাস্তবায়ন করা হবে। এতে ব্যয় হবে ৪০৬ কোটি ১৭ লাখ টাকা।মঙ্গলবার (২৩ অক্টোবর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে এ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
 
টেলিটক সূত্র বলছে, দুর্গম অঞ্চলে টাওয়ার বেজ স্টেশনের কাছে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া প্রায় অসম্ভব। সেলুলার নেটওয়ার্ক স্থাপনে কৌশলগতভাবে চ্যালেঞ্জিংও। ডিজেল জেনারেটর সহায়তায় দুর্গম এলাকায় সৌর বেজ স্টেশন স্থাপন করাও ব্যয় বহুল। এছাড়া এটি পাহাড়ি ও বনাঞ্চলে জীববৈচিত্র্যের জন্যেও ক্ষতিকর।
 
তবে সৌরচালিত স্টেশনের মাধ্যমে নিম্ন পাওয়ার বেজ স্টেশন স্থাপন করা হলে নেটওয়ার্ক পরিচালনা ব্যয় কম হবে। যা দেশের দুর্গম এলাকায় নেটওয়ার্ক স্থাপন সহজ হবে। ফলে যেসব জায়গায় বেসরকারি মোবাইল অপারেটরদের সেবা বিস্তৃত হয়নি সেসব স্থানে জনগণকে টেলিটকের নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হবে।
 
টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সাহাব উদ্দিন জানান, দেশের কিছু দুর্গম এলাকায় বিদ্যুৎ বেইজ স্টেশন স্থাপন করা কঠিন। এসব অঞ্চলে সৌর বিদ্যুৎ বেজ  টেলিটক স্টেশন স্থাপন করে গ্রাহকদের ফোরজি সুবিধা দেওয়া হবে। বেসরকারি কোম্পানির মতোই গ্রাহকরা সুবিধা পাবেন এসব এলাকায়।
‘আমরা প্রকল্পটি ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে নিচ্ছি না। শুধুই গ্রাহকদের সুবিধা দিতে চাই। অনেক বেসরকারি কোম্পানি দুর্গম এলাকায় যায়নি। আমরা দেশের মানুষের স্বার্থে এসব এলাকায় যেতে চাই।’
 
প্রকল্পের আওতায় সফটসুইচেস, মিডিয়া গেটওয়ে সম্প্রসারণ সুবিধা থাকবে। রেডিও একসেস নেটওয়ার্ক, সর্ট হল ট্রান্সমিশন এবং লং হল ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হবে।
চলতি বছর যেকোনো সময় প্রকল্প কাজ শুরু হয়ে ২০২০ সালের অক্টোবরের মধ্যে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানিয়েছে টেলিটক।

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ৩৬ বার


মুখোমুখি

Card image cap
‘বাংলাদেশকেই হিটাচি পণ্যের বাজার হিসেবে অধিক সম্ভাবনাময় দেশ বলে মনে হয়’ - চেন টেক ব্যঙ্ক

হিটাচি হোম ইলেকট্রনিক্স এশিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব চেন টেক ব্যঙ্ক প্রকৃতঅর্থে একজন বয়োজষ্ঠ্য, কিন্তু তার জ্ঞানের পরিধি এবং অক্লান্ত পরিশ্রম তার বয়সকেও হার মানিয়ে দেয়। আর সে কারণেই তিনি হয়ে ওঠেন এক অদম্য যুবকের সমতুল্য। তার আধুনিক ব্যবসায়িক চিন্তাধারা এশিয় অঞ্চলে হিটাচি পণ্য ও সেবার  বাজারের ব্যাপক প্রসার ঘটাবে বলে আশা করা যাচ্ছে। বাংলাদেশে হিটাচি কোম্পানির ডিস্ট্রিবিউটর ইউনিক বিজনেস সিস্টেম লিমিটেড কর্তৃক আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে মাসিক টেকওয়ার্ল্ড পত্রিকার প্রতিনিধির জনাব চেন টেক ব্যঙ্ক এর সাক্ষাৎকার গ্রহণের সুযোগ হয়, যার উল্লেখযোগ্য অংশটুকু এখানে তুলে ধরা হলোঃ

প্রশ্নঃ সাধারণ