মেধা সম্পদের মালিকানা নিশ্চিতে আইন প্রণয়ন করার প্রণয়নের বিকল্প নেই: মোস্তাফা জব্বার

প্রকাশঃ ০৯:১৫ মিঃ, ডিসেম্বর ২২, ২০২২
Card image cap

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, সময় পাল্টেছে বুদ্ধিভিত্তিক মেধা সত্ত্বের পাশাপাশি এখন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কিংবা রোবট দ্বারাও উদ্ভাবন হচ্ছে। উদ্ভাবনের এইসব বিষয়সমূহ মাথায় রেখেই মেধাসত্ত্বের বিষয়টি নিয়ে আইন প্রণয়ন করার বিকল্প নেই।

টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

মেধাসত্ত্ব সুরক্ষায় কপি রাইট, ট্রেডমার্ক এবং প্যাটেন্টের জন্য যুগোপযোগী ইন্টিলেকচ‌্যুয়াল প্রপার্টি রাইট (আইপিআর) আইনের প্রয়োজন বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। সেসঙ্গে ওয়ানস্টপ সার্ভিস সেন্টার প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি উদ্ভাবকদের মধ্যে এ বিষয়ে সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই বলেও মনে করেন অনেকে। 

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকায় রবি‘র প্রধান কার্যালয়ে মোবাইল অপারেটর রবি ও টেলিযোগাযোগ ও ডিজিটাল  প্রযুক্তি বিটের সাংবাদিকদের সংগঠন টিআরএনবি‘র যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায়-এসব কথা বলেন বক্তারা।  

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। 

টিআরএনবি সভাপতি রাশেদ মেহেদির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে রবি‘র সিইও রাজীব শেঠী, এমটবের সেক্রেটারি জেনারেল ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফরহাদ (অবসরপ্রাপ্ত), বেসিস সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, টিআরএনবি সেক্রেটারি মো: মাসুদুজ্জামান রবিন, কপিরাইট কার্যালয়ের কর্মকর্তা নওরীন জাহান নিশা এবং ই-ক্যাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট সাহাবুদ্দিন শিপন বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্যারিস্টার হামিদুল মিসবাহ।  

প্রধান অতিথি'র বক্তব্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, মেধা সম্পদের মালিকানা সুরক্ষিত না হলে দেশে উদ্ভাবন কিংবা সৃষ্টিশীলতা বিকশিত হবে না। উদ্ভাবন ও সৃজনশীলতা হচ্ছে পঞ্চম শিল্প বিপ্লবের পূর্বশর্ত। মেধাসত্ত্ব সুরক্ষায় কপিরাইট, ট্রেডমার্ক এবং প্যাটেন্টের জন্য যুগোপযোগী ইন্টিলেকচ‌্যুয়াল প্রপার্টি রাইট (আইপিআর) আইনের পাশাপাশি ওয়ানস্টপ সার্ভিস সেন্টারের মাধ্যম আইপিআর চালু এবং মেধা সম্পদ আন্তর্জাতিকী করণে এই সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক চুক্তিতে স্বাক্ষরের প্রয়োজনীয়তার ওপর মন্ত্রী গুরুত্বারোপ করেন।

মন্ত্রী বলেন, সময় পাল্টেছে বুদ্ধিভিত্তিক মেধা সত্ত্বের পাশাপাশি এখন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কিংবা রোবট দ্বারাও উদ্ভাবন হচ্ছে। উদ্ভাবনের এইসব বিষয়সমূহ মাথায় রেখেই মেধাসত্ত্বের বিষয়টি নিয়ে আইন প্রণয়ন করার বিকল্প নেই। 

মোস্তাফা জব্বার বলেন, কৃত্রিমবুদ্ধিমত্তা কিংবা রোবটিক্সসের মাধ্যমে উদ্ভাবিত সৃষ্টিশীলতার মেধার মালিকানা কার থাকবে আইনে তাও স্পষ্ট হওয়া উচিৎ। প্রতিযোগিতা মূলক বিশ্বে উদ্ভাবন ছাড়া টিকে থাকার শক্তি নাই উল্লেখ করে ডিজিটাল প্রযুক্তি বিকাশের এই অগ্রদূত বলেন, মানুষ এবং যন্ত্রের সমন্বিত রূপ হচ্ছে পঞ্চম শিল্প বিপ্লব। এই জন্য আমাদের তৈরি থাকতে হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ শতশত বছরের পশ্চাদপদতা অতিক্রম করে পঞ্চম শিল্প বিপ্লবে নেতৃত্বের জায়গায় উপনীত হয়েছে। আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশের ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় এখন প্রস্তুত। 


সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ৫৬ বার