'প্রতিটা নারীরই বিজয় অর্জন করার মতো সক্ষমতা রয়েছে'

প্রকাশঃ ০৬:০৯ মিঃ, মার্চ ১১, ২০১৮
Card image cap

দেশের স্বনামধন্য নারী আইসিটি উদ্যোক্তা লুনা শামসুদ্দোহা গত ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং তারিখে রাষ্ট্রয়ত্ত জনতা ব্যাংক লিমিটেড এর চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পান। তিনি দেশের বিখ্যাত সফটওয়্যার কোম্পানি দোহাটেক নিউ মিডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান। পাশাপাশি, তিনি বাংলাদেশ ওমেন ইন আইটি’র (বিডব্লিউআইটি) সভাপতি হিসেবে নিয়োজিত আছেন। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ বিজনেস ম্যাগাজিনের প্রতিষ্ঠাতা এবং গ্লোবাল থট্ লিডার অন ইনক্লুসিভ গ্রোথ অব সুইজারল্যান্ড এর একজন সম্মানিত সদস্য।

বনি হামজা :

বাংলাদেশের অর্থনীতি খাতে তার সাফল্য অর্জনের উদযাপনে এবং আইসিটি খাতে তার অপরিসীম অবদানের জন্য তাকে সম্মান জানাতে বাংলাদেশ ওমেন ইন টেকনোলজি (বিডব্লিউআইটি) এবং বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) যৌথভাবে একাট সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। উক্ত অনুষ্ঠানে তৎকালীন বাংলাদেশ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা এবং বাংলাদেশ ফেডারেশন অব ওমেন অন্ট্রাপ্রিনিউয়ারস এর বর্তমান সভাপতি রোকেয়া আফজাল রহমান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) এর সাধারণ সম্পাদক জনাব মুনির হাসান।
দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে লুনা শামসুদ্দোহাই প্রথম নারী যিনি রাষ্ট্রয়ত্ত ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদে নিযুক্ত হয়েছেন। এটা তথ্যপ্রযুক্তি খাতের জন্য এক গর্বের ব্যাপার। আমাদের দেশে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবসায়ে নারীর অংশগ্রহণ অনেক কম। কিন্তু, লুনা শামসুদ্দোহা তাদের মাঝে অন্যতম। আইসিটি খাতের পাশাপাশি তিনি দেশের শিক্ষা খাতেও দক্ষতার সাথে কাজ করছেন এবং ইন্ডিপেন্ডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ফান্ডিং ট্রাস্ট ইএসটিসিডিটি এর সভাপতি হিসেবে সম্পৃক্ত আছেন। লুনা শামসুদ্দোহা ২০০২ সাল হতে বেসিস এর একজন সম্মানিত সদস্য। এবারই প্রথম তিনি বেসিস এর নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। নারী উদ্যোক্তা হিসেবে এবং নেতৃত্বস্থানীয় ভূমিকার জন্য লুনা শামসুদ্দোহা দেশ-বিদেশে অসংখ্যবার পুরস্কৃত হয়েছেন। তথ্যপ্রযুক্তিতে নারীদের অগ্রগতি এবং ক্ষমতায়নে অবদান রাখার জন্য তিনি গ্লোবাল ওমেন ইনভেন্টরস্ এবং ইনোভেটরস্ নেটওয়ার্ক (জিডব্লিউআইআইএন) পুরস্কার অর্জন করেন। ইতিপূর্বে তিনি ২০০৫ সালে সুইস ইন্টার্যািকটিভ মিডিয়া সফট্ওয়্যার এ্যাসোসিয়েশন্স (এসআইএমএসএ) পুরস্কারে ভূষিত হন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে রোকেয়া আফজাল বলেন-“আমাদের নারীরা আর পিছিয়ে নেই এবং তাদের মধ্যে যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে আমাদের দেশের বিভিন্ন খাতে সফলতার সাথে কাজ করার। সফল পেশাজীবী হিসেবে তারা বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাদের প্রতিভা দেখিয়েছে, আর লুনা শামসুদ্দোহা হলেন সে সমস্ত নারীদের মধ্যে অন্যতম।”  
অন্যদিকে মুনির হাসান বলেন-“এটা আসলেই আমাদের জন্য গর্বের যে লুনা শামসুদ্দোহা জনতা ব্যাংকের চেয়ারম্যান হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন আর এতে এটাই প্রমাণিত হয় যে নারীরা চাইলে যে কোনো কিছুই করতে পারে।”
সকলের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে লুনা শামসুদ্দোহা তার বক্তব্যে বলেন-“আমি সব সময় পরিশ্রমে বিশ্বাসী। প্রতিটা মুহুর্তে অক্লান্ত সমর্থন দেওয়ার জন্য আমি আমার বন্ধুবান্ধব, সহকর্মীদের প্রতি চিরকৃতজ্ঞ। আমার দায়িত্ববোধ থেকে আমি আমার সর্বাত্মক দেওয়ার চেষ্টা করব। আমি বিশ্বাস করি যে প্রতিটা নারীরই বিজয় অর্জন করার মতো সক্ষমতা রয়েছে। তাদের শুধু প্রয়োজন সহমর্মিতা আর কঠোর পরিশ্রম।
বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কল সেন্টার এ্যান্ড আউটসোর্সিং (বাক্য), ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইউ), ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারস এ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (আইএসপিএবি), বাংলাদেশ ওমেন ইন টেকনোলজি (বিডব্লিউআইটি) এর মতো দেশের বিভিন্ন সংগঠন থেকে বিভিন্ন শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিত্ত্বগণ লুনা শামসুদ্দোহার এরূপ অভাবনীয় সাফল্য অর্জনে তাকে অভিনন্দন জানাতে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ৬৭৪ বার