এমএনপি সেবায় কমলো খরচ

প্রকাশঃ ০৩:১৯ মিঃ, জানুয়ারি ১৫, ২০১৯
Card image cap

এমএনপি সেবায় কমলো খরচ

টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

নম্বর অপরিবর্তিত রেখে অপারেটর পরিবর্তনের (এমএনপি) সেবাগ্রহণের ক্ষেত্রে আরোপিত মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি দিয়েছে সরকার। ফলে এখন থেকে মাত্র ৫৭ টাকা ৫০ পয়সায় এই সেবা নেওয়া যাবে।

মূল্য সংযোজন কর আইন, ১৯৯১ এর ধারা ১৪ এর উপধারা ১-এ প্রদত্ত ক্ষমতাবলে সরকার এমএনপি সেবা গ্রহণের ক্ষেত্রে আরোপিত মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি দিয়ে রোববার (১৩ জানুয়ারি) প্রজ্ঞাপণ জারি করেছে। প্রজ্ঞাপনটি প্রকাশ হয় সোমবার (১৪ জানুয়ারি)।

বর্তমান অপারেটরের সিমকার্ডের পরিবর্তে নতুন অপারেটরের সিমকার্ড গ্রহণের ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য হবে বলে অর্থ মন্ত্রণালয়ের ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে।

এমএনপি সেবাগ্রহণের জন্য একজন গ্রাহককে কাঙ্ক্ষিত অপারেটরের নতুন সিম ও এমএনপি চার্জ বাবদ ১৫৭ টাকা ৫০ পয়সা গুণতে হতো। এরমধ্যে এমপি চার্জ ৫০ টাকা ও ভ্যাট ৭ টাকা ৫০ পয়সা। আর সিম ক্রয় বাবদ গ্রাহককে ১০০ টাকা দিতে হতো। এখন থেকে মোট টাকা থেকে ১০০ টাকা বাদ যাবে।

গ্রাহককে কাঙ্ক্ষিত অপারেটরের সেবা কেন্দ্রে গিয়ে নির্দিষ্ট ফি প্রদান ও পুরনো সিম বদল করে নতুন সিম নিতে হবে। এমএনপি সেবা চালু হলে পরবর্তী ৯০ দিন তিনি অপারেটর পরিবর্তন করতে পারবেন না।

এর আগে সিম বদলের জন্য যে ১০০ টাকা দিতে হয় তা মওকুফের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠায় টেলিযোগাযোগ বিভাগ।

রবি আজিয়াটা লিমিটেডের হেড অব করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স শাহেদ আলম বলেন, এমএনপি সেবার সিম প্রতিস্থাপন কর তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত খুবই ইতিবাচক একটি পদক্ষেপ। আমরা আশা করছি, এর ফলে এ সেবা নিতে গ্রাহকের আগ্রহ অনেকাংশেই বাড়বে। এতে সরকারের রাজস্ব আয়ও বাড়বে। এছাড়া মোবাইল ফোন অপারেটরদের মধ্যে এমএনপি সেবা দিতে প্রতিযোগিতা আরও বাড়বে, যার সুফল হিসেবে গ্রাহকেরা পাবেন উন্নত মানের সেবা।

গতবছরের ১ অক্টোবর এমএনপি সেবা চালু করে সরকার। যা আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয় ২১ অক্টোবর। এমএনপি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ইনফোজিলিয়ন টেলিটেক বিডি এই সেবা দিচ্ছে। এমএনপি সেবা নিয়ে একজন গ্রাহক ভয়েস ও ডাটা সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

গত বছরের ৩০ নভেম্বর বাংলাদেশ ও স্লোভেনিয়ার যৌথ কনসোর্টিয়াম ইনফোজিলিয়ন বিডি টেলিটেককে মোবাইল অপারেটরদের মাধ্যমে দেশে এমএনপি সেবা প্রদানের লক্ষ্যে লাইসেন্স দেওয়া হয়।

কার্যক্রম চালুর ৬ মাসের মধ্যে দেশের মোবাইল গ্রাহকদের কমপক্ষে ১ শতাংশ, এক বছরের মধ্যে ৫ শতাংশ এবং পাঁচ বছরের মধ্যে ১০ শতাংশকে সেবার আওতায় নিয়ে আসতে হবে।

এমএনপি নীতিমালার শর্তানুযায়ী, বার্ষিক লাইসেন্স ফি ২৫ লাখ টাকা, রেভিনিউ শেয়ারিং (দ্বিতীয় বছর থেকে) ১৫ শতাংশ হারে এবং সামাজিক দায়বদ্ধতা (সিএসআর) তহবিলে দ্বিতীয় বছর থেকে বার্ষিক নিরীক্ষাকৃত আয়ের ১ শতাংশ বিটিআরসিকে দিতে হবে।

বিটিআরসির তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে বিশ্বের ৭২টি দেশে এমএনপি সেবা চালু রয়েছে। প্রতিবেশী ভারতে ২০১১ সালে এবং পাকিস্তানে এমএনপি সেবা চালু হয় ২০০৭ সালে। এমএনপি সেবা চালু হওয়ায় অপারেটররা সেবার মান বাড়াবে বলে জানায় বিটিআরসি।

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ১০১ বার