বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় তথ্যপ্রযুক্তি খাত নিয়ে জাপানে সেমিনার

প্রকাশঃ ০৫:১৩ মিঃ, জানুয়ারি ৩০, ২০১৯
Card image cap

বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় তথ্যপ্রযুক্তি খাত নিয়ে জাপানে সেমিনার 

টেকওয়ার্ল্ড প্রতিনিধি:

বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সম্ভাবনা নিয়ে শুক্রবার টোকিওর ফুজিতসু রিসার্চ ইনস্টিটিউটে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

টোকিওস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস ও ফুজিতসু রিসার্চ ইনস্টিটিউট যৌথভাবে এই সেমিনারের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে জাপানের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের শতাধিক প্রতিনিধি যোগ দেন।

সেমিনারে বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নয়ন ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সম্ভাবনা বিষয়ে মূল উপস্থাপনা করেন জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা।

এ সময় রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরেন বলেন, ‘বাংলাদেশের উন্নয়ন আজ বিশ্ব স্বীকৃত। ২০১৯ সালে বাংলাদেশকে বিশ্বের ৪১তম বৃহৎ অর্থনীতি হিসেবে চিহ্নিত করা হচ্ছে এবং ধারণা করা হচ্ছে আগামী ২০৩২ সালের মধ্যে বাংলাদেশ বিশ্বের ২৪তম বৃহৎ অর্থনৈতিক শক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাবে।’  

রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা জাপানের অর্থনৈতিক নীতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী তোশিমিতসু মোতেগির সাম্প্রতিক বাংলাদেশ সফরকালে প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠকে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে সহযোগিতার ওপর গুরুত্বারোপ এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন তথ্যপ্রযুক্তি কোম্পানি পরিদর্শনের কথা সবাইকে অবহিত করেন।

এ সময় তিনি জাপানি বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগে এবং বাংলাদেশ থেকে তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ জনবল নিয়োগের আহ্বান জানান।

পৃথক এক উপস্থাপনায়  জাইকার দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক পরিচালক আকিতো তাকাহাশি বাংলাদেশে জাইকা উন্নয়ন উদ্যোগ এবং জাপান-বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তি সহযোগিতা বিশেষ করে মানবসম্পদ উন্নয়ন বিষয়ে আলোচনা করেন।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অফ সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর সাবেক সভাপতি মাহবুব জামান জাপান-বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তি সহযোগিতা ও এই খাতে বাংলাদেশে বিনিয়োগ সম্ভাবনা এবং জাপানে বাংলাদেশের দক্ষ আইটি প্রফেশনালদের চাকরির সুযোগ নিয়ে আলোচনা করেন। 

এছাড়া ফুজিতসু রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নাকাতানি হিরোহিসা বাংলাদেশ ও এশিয়ার আইসিটি মার্কেটের ওপর বিশদ আলোচনা করেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সার্বিক অর্থনৈতিক উন্নয়নের ওপর একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

সেমিনারটি আয়োজনে সহযোগিতা করে জাইকা, ইউনাইটেড নেশন্স ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন এবং বেসিস।

প্রশ্ন-উত্তর ও বিজনেস নেটওয়ার্কিং পর্বের মাধ্যমে সেমিনারটির সমাপ্তি হয়।  

সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ ২৪৭ বার